প্রকাশিত : ১৩ আগস্ট, ২০১৯ ২০:২৭

বগুড়া সদরের ধলমোহিনী পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন,৪-৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি

ষ্টাফ রিপোর্টার
বগুড়া সদরের ধলমোহিনী পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন,৪-৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি

বগুড়া সদরের ধলমোহিনী বারিকল এলাকার ঘন পাড়া বায়তুন নুর জামে মসজিদ কমিটির  কাছে থেকে পত্তন  নেওয়া এক গরীব ভটভটি চালকের পুকুরে পূর্ব শক্রতার জেরে গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগে মাছ নিধন, ৪/৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি, থানায় অভিযোগ।

এলাকাবাসী ও গরীব  মাছ চাষী মোজাম উদ্দিনের পুত্র ভটভটি চালক আনছার  আলী জানায় সে ৩ বছরের জন্য মসজিদ কমিটির কাছে  থেকে বারিকল এলাকায়  প্রায় ৩ বিঘা  জমির পুকুর পত্তন নিয়ে বিভিন্ন প্রজাতীর মাছ চাষ করে।  মাছগুলি ৩/৪ দিন পরে উত্তোলন করে বিক্রি করার কথা।  আনিছুর জানায় চিহ্নিত একটি পরিবারের চিহ্নিত এক ব্যক্তি আমাকে পুকুরটি পত্তন নিতে নিষেধ করে। আমার ধারণা সেই এই তি করতে পারে। বিভিন্ন প্রজাতীর মাছ গুলির মধ্যে দেশী প্রজাতীর রুই,মৃগেল, কাতল, শিং, মাগুর, টেংরা, তেলাপিয়া, কারফু,বিদেশী প্রজাতীর মনোসিক্স, সহ  আরও অন্যান্য মাছ গ্যাস ট্যাবলেট প্রয়োগে নিধন করে। এতে আনছার আলীর ৪/৫ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়। ঘটনাটি ঘটে ঈদের পূর্বদিন রাতে।  ঈদের দিন সকালে আনছার আলী ও তার ত্রী পুকুর পাড়ে গিয়ে মরা মাছ দেখে কান্নায় ভেংগে পড়ে। বাড়ীর গরু, ভটভটি ও অন্যান্য জিনিস বিক্রি করে মাছগুলি তারা চাষ করত। তাদের কান্নায় আকাশ বাতাস ভাড়ী হয়ে উঠে।  এ ঘটনায় তারা নি: শ্ব হয়ে গেছে। আনছার আলী বাদী হয়ে  বগুড়া সদর মামলা দায়ের প্রস্তুতি গ্রহণ করে। বিষয়টি তদন্ত সাপেে দোষী ব্যক্তিকে খুজে বের করে তিপূরণ সহ কঠোর শান্তি প্রদানের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি এলাকাবাসী ও তিগ্রস্থ পরিবার জোর দাবী জানান।

উপরে