প্রকাশিত : ৩০ নভেম্বর, ২০২১ ২৩:১১

বগুড়ার ধুনটে নৌকায় ভোট দেয়ায় শিক্ষককে মারপিট

ধুনট প্রতিনিধি
 বগুড়ার ধুনটে নৌকায় ভোট দেয়ায় শিক্ষককে মারপিট

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা  পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ  আব্দুল হাই খোকনের ছোট ভাই শিক্ষক আব্দুল্লাহ আল মামুনকে (৪৫) মারধর করেছে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলেফ বাদশা।

মঙ্গলবার  (৩০ নভেম্বর) দুপুরে এঘটনাকে কেন্দ্র করে চিকাশী ইউনিয়নে দুই গ্রুপের শত শত লোকজন লাঠি-শোডা, ধারালো অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত অবস্থায় রূপ নেয়। পরে ধুনট থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

এদিকে এঘটনার পর পরই নৌকার বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নিজের মেয়ের জামাইকে ভোটে দাঁড় করিয়ে দেওয়ায় অভিযোগে চিকাশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির পদ থেকে আলেফ বাদশাকে বহিস্কার করা হয়েছে ।  

স্থানীয় লোকজন জানায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ দিকে উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই খোকনের ছোট ভাই সোনারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বাড়ি থেকে বের হয়ে চিকাশী মফিজ মোড়ে পৌঁছালে চিকাশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলেফ বাদশা ও তার লোকজন রাস্তার উপর তাকে বেদম মারপিট করেন ।

এসংবাদ পেয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পক্ষে সোনারগাঁও, সুলতানহাটা, ছোট চিকাশী ও চিকাশী গ্রামবাসী সহ দলীয় নেতাকর্মীরা চিকাশি মফিজ মোড়ে অবস্থান নেয়। এসময় আলেফ বাদশা তার লোকজন নিয়ে চিকাশী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে পৃথক অবস্থান নেয়। তখন দুই গ্রুপের লোকজনের হাতেই লাঠিশাডা ও ধারালো অস্ত্র ছিল। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

ভোটে পরাজিত পাওয়ার পর থেকেই আওয়ামীলীগ নেতা আলেফ বাদশা ও তার লোকজন নৌকার কর্মী সমর্থকদের হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিল।

ধুনট উপজেলার আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাই খোকন বলেন, আমার ভোট ভাই শিক্ষকতা করেন। সে কোন রাজনীতি করে না। কিন্তু আলেফ নৌকায় ভোট দেওয়ার জন্য আমার ভাইকে অন্যায়ভাবে মেরে আহত করেছে। সে ধুনট উপজেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আলেফ বাদশা নৌকার বিপক্ষে অবস্থায় নেয়ায় তাকে দল থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়েছে এবং মারপিটের ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছেও জানান তিনি।

তবে এব্যাপারে আওয়ামীলীগ নেতা আলেফ বাদশা বলেন, ওই শিক্ষককে কোন মারধর করা হয়নি। ধাক্কাধাক্কি হয়েছে মাত্র।

এবিষয়ে ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, এবিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

উপরে