প্রকাশিত : ১৯ নভেম্বর, ২০২৩ ২১:৪১

ঢাকা-রংপুর এশিয়ান হাইওয়ে হলে যোগাযোগে সময় বাঁচবে ৪ ঘন্টা

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ
ঢাকা-রংপুর এশিয়ান হাইওয়ে হলে যোগাযোগে সময় বাঁচবে ৪ ঘন্টা

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার অন্তর্ভুক্ত ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের বগুড়া বনানী থেকে মোকামতলা পর্যন্ত ছয় লেন এশিয়ান হাইওয়ে নির্মাণ কাজ সাসেক-২ ডাবলিউ.পি-৯ মনিকো লিমিটেড ঠিকাদারী তত্ত্ববধানে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।

প্রকল্প ব্যবস্থাপক জানান, ঠিকাদীর প্রতিষ্ঠানের আওতায় ২৫ কি.মি সড়কের নিচের অংশের বাম অংশের কাজ শতভাগ সম্পূর্ণ হয়েছে। বর্তমানে উপরের অংশের টেডমিন্টের কাজ চলছে। ১ম স্তরের লিয়ার ৮০ মিলি.মিটার কাজ সম্পুর্ণ হয়েছে। ২য় স্তরের ৭০ মিলি.মিটার কাজ শেষের পথে। বাকি কাজ এ মাসের মধ্যে সমাপ্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্র্তৃপক্ষ।

তিনি আরো বলেন, বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মোকামতলা বন্দরে মুরাদপুর এলাকায় কোম্পানি অত্যধানিক প্লান্ট মেশিনে বিটুমিন ও সড়ক নির্মানের জন্য নির্ধারিত পাথর মিক্সি করে হাইড্রনিক ড্রাম ট্রাকে উত্তপ্ত পাথর পরিবহন করে। আন্তর্জাতিক মানের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মনিকো লিঃ এই সড়কের নির্মাণ কাজ পরিচালনা করছেন। সরকারি বিধি মোতাবেক বিটুমিন এর ঘনত্ব ও তাপমাত্রা বজায় রেখে অত্যধুনিক হাইড্রলিক সড়ক নির্মান মেশিন দ্বারা চাপ প্রয়োগ করে ৭০ মিলি. মিটার পুরুত্ব আনতে মহা সড়কে অত্যাধুনিক ৪টি রোলার মেশিন দ্বারা সমান্তরাল করা হচ্ছে। প্রথমে দুটি হাইড্রোলিক ভ্রাইবেশন স্টীল রোলার দ্বারা সমান্তরাল করা হয়। পরে রাবার রোলার দ্বারা ফিনিং কাজ শেষ করা হয়। নির্মাণ কাজটি পরিদর্শন করেন সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আসাদুজ্জামান। কাজগুলি সদারকি করছেন সওজের সহকারি প্রকৌশলী কামাল ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী বৃন্দ।

নির্মাণ কাজটি সরকারি বিধি মোতাবেক পরিচালিত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সন্তোষ প্রকার করেছেন। উক্ত প্রতিষ্ঠানের প্রকল্প ব্যবস্থাপক আরো জানান বর্তমান সরকারের সেতু ও সড়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে অতিদ্রুত ঢাকা-রংপুুর মহাসড়কের নির্মাণ কাজ গুলো সমাপ্ত করে এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটি এশিয়ান হাইওয়ের সঙ্গে যুক্ত করা হবে। এই সড়কটির নির্মাণা কাজ সম্পূর্ণ হলে ঢাকা-রংপুর মহাসড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা অতি উন্নত হবে। বিভিন্ন বন্দরে বন্দরে ওভার পাস সেতু থাকায় যানযট মুক্ত হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। সেই সাথে এই সড়কটির নির্মাণ হলে ঢাকা-রংপুর মহা সড়কে যানবহন চলাচলে সময় এবং জ্বালানী খরচ সাশ্রয়ী হবে এবং এই সড়কের যাত্রীরা যোগাযোগের ক্ষেত্রে অভাবনীয় সুবিধা ভোগ করেবন। এতে করে প্রায় ৪ ঘন্টা সময় কমিয়ে আসবে। এতে করে যাত্রীরা ঢাকা থেকে রংপুর ৪-৫ ঘন্টার মধ্যে পৌঁছে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করছে। সরকারের এশিয়ান হাইওয়ে নির্মানের মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন হওয়ায়এর সুফল পাওয়ায় ভুক্তভোগি যাত্রীবৃন্দ বর্তমান সরকারকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

উপরে