প্রকাশিত : ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ ২৩:৫৬
বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুন

আর্মি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবু তালহার স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
আর্মি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবু তালহার স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

ঢাকার গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনে নিহত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী আবু তালহার স্মরণে রবিবার এক স্মরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নীলফামারীর সৈয়দপুর সেনানিবাসে অবস্থিত বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ওই স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।  আবু তালহা বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলেন।

সকালে বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি  বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে প্রধান ফটকে প্রবেশ করে সকল শিক্ষার্থীরা আবু তালহার প্রতি সম্মান জানিয়ে কালো ব্যাজ ধারণ করেন। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের  ক্যাম্পাসে দোয়া মাহফিল ও  এক সংক্ষিপ্ত স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সানোয়ার উদ্দিন (অব:) শোকাহত পরিবেশে তাঁর বক্তব্যে আবু তালহার সম্পর্কে স্মৃতিচারণা করেন। এতে অন্যান্যদের আরও বক্তব্য রাখেন  রেজিস্ট্রার লে. কর্নেল মো. নাঈম (অব.) ট্রেজারার ড. শাহ আলম প্রমুখ। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের ডীন, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক-শিক্ষিকা,কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকার গোপীবাগে বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনে নিহত বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের   মেধাবী শিক্ষার্থী আবু তালহা (২৪)। তাদের বাড়ি রাজবাড়ীর কালুখালি উপজেলার মৃগী ইউনিয়নের গ্যাংবধূনদিয়া  গ্রামে। ঘটনার দিন গত ৫ জানুয়ারি বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে চেপে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন তিনি। পরে সেখান থেকে আন্তঃনগর নীলসাগর এক্সপ্রেস  ট্রেনে বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দেশ্যে  (বাউস্ট) আসার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু ঢাকার গোপীবাগে দুর্বৃত্তের দেওয়া আগুনে নিহত শিক্ষার্থী তালহাসহ চারজন। আগুনে এমনিইভাবে পুড়ে গিয়েছিল যে তাদের পরিচয় সনাক্ত করা যাচ্ছিল না। পরে সিআইডি তালহাসহ তিনজনের ডিএনএ সংগ্রহ করে এক মাস নয় দিন পর গত ৮ ফেব্রুয়ারি নিশ্চিত হয় বেনাপোল এক্সপ্রেসে পুড়ে যাওয়া মরদেহটি  শিক্ষার্থী আবু তালহার। গত ৯ ফেব্রুয়ারি তাকে গ্রামের বাড়িতে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন হয়েছে বলে জানায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। 

এদিকে, বেনাপোল এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনে নিহত আবু তালহাকে স্মরণে রাখতে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের আবু তালহার ছোট ভাই আবু তাসলামকে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে চলতি সেমিস্টারে বিনা টিউশন ফিতে ভর্তি করে নেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন তাদের মা মাহফুজা ফেরদৌসী। 

উপরে