logo
আপডেট : ২ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:১৪
অত্যাচার ও দুর্নীতি তৎকালীন বিএনপি-জামাত জোট সরকারের রাজনৈতিক দর্শন:দুলু
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

অত্যাচার ও দুর্নীতি তৎকালীন বিএনপি-জামাত জোট সরকারের রাজনৈতিক দর্শন:দুলু

বগুড়া জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান একেএম আছাদুর রহমান দুলু বলেছেন, অত্যাচার ও দুর্নীতি তৎকালীন বিএনপি-জামাত জোট সরকারের রাজনৈতিক দর্শন। মানুষকে বিভ্রান্ত, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও ইতিহাস বিকৃত এবং মিথ্যাচার করে বিএনপি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। রাজাকার-আলবদরদের দিয়ে বিএনপি গঠন করে দেশের বীর মুক্তিযোদ্ধাদের হেয় ও ছোট করা হয়েছিল। 

২০০১ সালে ১লা অক্টোবর তৎকালীন বিএনপি-জামাত ভোট কারচুপি ও প্রহসনের নির্বাচন করে গণতন্ত্রহরণ করার ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। শুধু গণতন্ত্রহরণই নয় সারাদেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়সহ আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাকর্মীদের উপর বর্বরোচিত হামলা বাড়ি-ঘর ভাংচুর, মিথ্যা মামলা ও সীমাহীন অত্যাচার নির্যাতন অব্যাহত রেখেছিল। তাদের নির্যাতনে দেশের সকল শ্রেণী পেশার মানুষ অতিষ্ট হয়েছিল। সীমাহীন দুর্নীতির কারণে দেশের উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ হয়েছিল। অসাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এ দেশ, সবার আছে বাঁচার অধিকার, খাবার অধিকার ও নাগরিক অধিকার। সাধারণ জনগণের নাগরিক অধিকার ভূলুন্ঠিত হয়েছিল সে সময়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান লাল-সবুজের পতাকা ছিনিয়ে এনেছিল বাঙালি জাতিকে ভালো রাখার জন্য। কিন্তু বিগত বিএনপি-জামাত জোট সরকার বঙ্গবন্ধুর নাম নিশ্চিহৃ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত ছিল। এ দেশের জনগণ জাতির পিতার অবদান কখনই ভুলতে পারে না। তাদের চক্রান্ত বুঝতে পেরে ২০০৯ সালে এ দেশের জনগণ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে ক্ষমতায় নিয়ে আসে। 

তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার টানা ৩ বার ক্ষমতায় থেকে দেশে উন্নয়নের জোয়ার সৃষ্টি করেছে। তলাবিহীন ঝুঁড়ি হতে বর্তমানে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে স্থান করতে সক্ষম হয়েছে। এমডিজি বাস্তবায়নসহ এসডিজি প্রগ্রেস এওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিশন ২১ ও ভিশন ৪১ বাস্তাবায়নে এ সরকার বদ্ধ পরিকর। উন্নয়নের জোয়ারে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ, মানসিকভাবে বিকাশ ঘটছে এ জাতির, বিশ্বের যেকোন দেশের সাথে তাল মিলিয়ে চলার মতো যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ। এ জাতিকে এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রাখছে ও কান্ডারি হিসেবে কাজ করছে দেশরতœ বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদাত্ত আহ্বান, ‘আসুন দলমত নির্বিশেষে সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে আগামী প্রজন্মের জন্য একটি উন্নত, সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলি।’
শনিবার দুপুরে বগুড়া জেলা তাঁতী লীগের উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল শেষে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
জেলা তাঁতী লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান সোহেল ও সাধারণ সম্পাদক রাশেকুজ্জামান রাজনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলমগীর হোসেন স্বপন। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা তাঁতী লীগের সহ-সভাপতি নাজমুল হক সজীব, সাব্বির হোসেন সবুজ, আল আমিন সরকার, উজ্জল কুমার মন্ডল, শামীম হোসেন,, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আরিফুল আলম শাওন, জেলা তাঁতী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান রাব্বি, সাংগঠনিক সম্পাদক আপেল মল্লিক, রাজু হোসেন রাজ, দপ্তর সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক লুৎফর রহমান, উপ-প্রচার সম্পাদক মাহমুদুল হাসান রনি, শহর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মোতাহার হোসেন মিজু, তাঁতী লীগ নেতা ডাবলু, শানেজুল ইসলাম সাগর, শাহনেয়াজ খান সুমন, কোয়েল, আলা আমিন, আতিকুল ইসলাম, জুয়েল, আখতার, মিজানুর রহমান,  সাব্বির, অনেখ খান, আকাশ, কাজল, রবিউল ইসলামসহ প্রমুখ।