logo
আপডেট : ২৫ নভেম্বর, ২০২১ ১৫:৩১
৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের
অনলাইন ডেস্ক

৪৮ ঘণ্টার আলটিমেটাম শিক্ষার্থীদের

নটরডেম কলেজের শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার ঘটনায় গুলিস্তান এলাকা অবরোধ করে রেখেছে। এই অবরোধে শিক্ষার্থীরা নাঈম হাসান হত্যার বিচার চেয়ে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে। এই সময়ের মধ্যে যদি হত্যার সুষ্ঠ বিচার ও নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত না করা হয় তাহলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাবে বলে ঘোষণা দিয়েছে।

শিক্ষার্থী রাজধানীর জিরো পয়েন্ট এলাকা অবরুদ্ধ করে বলে, কেন আমাদের সড়ক নিরাপদ নয়? কেন আমাদের ভাই রাস্তা এভাবে মারা যাবে?  হত্যার সুষ্ঠ বিচার ও নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত না করলে, যদি আমাদের দাবি না মানা হয় তাহলে রবিবার আবার আমরা রাস্তায় নামবো।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি)-এর একটি ময়লা গাড়ি চালাচ্ছিলেন একজন সুইপার। সেই গাড়ির ধাক্কায় গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থী নাঈম হাসান নিহত হন। 

এদিকে, ওই ঘটনায় বিচারের দাবিতে বেইলি রোডে অবস্থান নেওয়ায় এসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষ।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার হওয়া ওই ‘গাড়ির চালক’ রাসেলকে (২৬) প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের বরাত দিয়ে পল্টন থানার ওসি সালাহ উদ্দিন মিয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গ্রেপ্তার রাসেল গাড়িটির মূল চালক নয়। এ ধরনের ভারী গাড়ি চালানোর তেমন অভিজ্ঞতাও তার নেই।’

ঘটনার প্রতিবাদে নটর ডেম কলেজের শিক্ষার্থীরা দুপুর ২টার দিকে কলেজের সামনে, মতিঝিল শাপলা চত্বর ও গুলিস্তান এলাকায় অবস্থান নিয়ে সড়ক অবরোধ করে। তারা নাঈমের মৃত্যুকে হত্যা দাবি করে চালকের ফাঁসি দাবি করে। শিক্ষার্থীদের হাতে ছিল প্ল্যাকার্ড। অনেকের বুকে, পিঠে লেখা ছিল, ‘আমি বাঁচতে চাই’।

নাঈম লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার কাজিরখিল গ্রামের শাহ আলমের ছেলে। মায়ের নাম জান্নাতুল ফেরদৌস। তার বাবার নীলক্ষেতে বইয়ের ব্যবসা রয়েছে। কামরাঙ্গীর চর ঝাউলাহাটি চৌরাস্তা এলাকায় নিজেদের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকত সে। দুই ভাইয়ের মধ্যে সে ছিল ছোট।