logo
আপডেট : ২২ ডিসেম্বর, ২০২১ ২৩:২৫
সাফ অনূর্ধ্ব–১৯ ফুটবলে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা
অনলাইন ডেস্ক

সাফ অনূর্ধ্ব–১৯ ফুটবলে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

ফাইনাল ম্যাচে ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ের খুশিতে লাল-সবুজের পতাকা হাতে উল্লাসে মাতল দেশের মেয়েরা। তাদের সঙ্গে উৎসবে যোগ দিলেন দলের কোচিং স্টাফরাও। সবাই মিলে পুরো মাঠে দাপিয়ে বেড়ালেন। উচ্ছ্বাসের বন্যায় ভেসে মাঠে উপস্থিত সবাই যেন চলে গেলেন অন্য কোনো জগতে। যেখানে পাখা মেলে উড়তে আর বাধভাঙা উন্মাদনায় মাততে নেই কোনো বাধা।

মেয়েদের খুশির মাত্রা যে একটু বেশিই ছিল। থাকবেই বা না কেন? মেয়েদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল চাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতে তারা যে ইতিহাস গড়ে ফেলেছে। যেটা পারেনি বাংলাদেশের জাতীয় নারী দল। এমনকি পুরুষদের জাতীয় ফুটবল দলের দখলেও নেই এমন অসাধারণ কীর্তি। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে এর আগে বাংলাদেশের কোনো দল জেতেনি একাধিক শিরোপা। আর শিরোপ ধরে রাখা তো দূরের কথা।

দুরন্ত পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের মেয়েদের বয়সভিত্তিক দলটি লিখল সাফল্যগাঁথা। দেশের ফুটবল ইতিহাসটাই লিখল নতুন করে। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শুধু দুটি শিরোপাই জেতেনি মেয়েরা। ট্রফি ধরে রাখার রেকর্ডও গড়েছে তারা। মানে আঁখি খাতুন-মারিয়া মান্ডারা ঘরে তুলল টানা দ্বিতীয় ট্রফি। টুর্নামেন্টের প্রথম দুটি শিরোপাই নিজেদের করে নিয়েছে কোচ রব্বানী ছোটনের দল।

দেশের ছেলেরা সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে খেলেছে তিন তিনবার। কিন্তু চ্যাম্পিয়নের তকমা গায়ে জড়িয়েছে মাত্র একবার। সেও আবার ২০০৩ সালে। মালদ্বীপকে ধরাশায়ী করে। ১৯৯৯ ও ২০০৫ সালে এই ভারতেরই কাছে শিরোপা হাতছাড়া করেছিল লাল-সবুজের জার্সিধারীরা। আর মেয়েদের জাতীয় দল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ফাইনাল খেলেছে একবার। ২০১৬ সালে সেই প্রতিবেশী ভারতের কাছে স্বপ্নভঙ্গের হতাশায় পুড়তে হয়েছে মেয়েদের সিনিয়র দলকেও।

২০১৮ সালে টুর্নামেন্টের অভিষেক আসরে শিরোপা জিতেছিল বাংলাদেশ। ভুটানের মাটিতে নেপালকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। অবশ্য সেবার টুর্নামেন্টটি বসেছিল অনূর্ধ্ব-১৮ দল নিয়ে।

এবার টুর্নামেন্ট হলো অনূর্ধ্ব-১৯ দল নিয়ে। এবারও শিরোপা জিতল দেশের মেয়েরা। ব্যবধান সেই একই। ১-০ গোল। কেবল প্রতিপক্ষ আর ভেন্যু পাল্টে গেল। আজ বুধবার, ২২ ডিসেম্বর প্রতিবেশী ভারতকে ঘরের মাঠের ফাইনালে হারিয়ে মেয়েদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা ধরে রাখল মারিয়া মান্ডারা।

পরিসংখ্যানে এগিয়ে থেকেই শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে খেলতে নেমেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা। মাঠের লড়াইয়েও আধিপত্য বিস্তার করে খেলেছে স্বাগতিকরা। তবে কিছুতেই যেন গোলের দেখা মিলছিল না। শেষে ম্যাচের ৮০তম মিনিটে ভারতের রক্ষণদুর্গ ভাঙে দেশের মেয়েরা। ম্যাচের একমাত্র জয়সূচক গোলটি করেন আনাই মগিনি। তাতেই প্রথমবার ফাইনালে উঠা ভারতের মেয়েদের শিরোপা জয়ের স্বপ্ন ভেঙে যায়।

খেলার বাকি তখন দশ মিনিট। সাহেদা আক্তার রিপা ব্যাকহিল পাস দেন। মাঠের ডান প্রান্তে থাকা আনাই মগিনি বক্সের বাইরে থেকে নেন দুরন্ত এক শট। উড়ে যাওয়া বল ফিস্ট করতে চেয়েছিলেন ভারতের গোলরক্ষক। কিন্তু ব্যর্থ হন তিনি। ফলে বল তার হাতে লেগে জড়ায় জালে। বল গোল লাইন পার হতেই লাল-সবুজের ডাগআউট রূপ নেয় খুশির ফোয়ারায়। আর কমলাপুর স্টেডিয়ামের গ্যালারি ভর্তি দর্শকরাও ভাসতে থাকে উচ্ছ্বাসের জোয়ারে। ম্যাচ শেষে সেই আনন্দ বইয়ে যায় যেন উৎসবের আমেজ নিয়ে।

বাংলাদেশ এগিয়ে যেতে পারত ১৬তম মিনিটেই। ভারতের গোলরক্ষক প্রথম প্রচেষ্টায় বল ধরতে পারেননি। তোহুরার শট ভারতের গোলরক্ষক ফেরান একেবারে গোললাইনের ওপর থেকে। বাংলাদেশের ফুটবলাররা গোলের জোড়ালো দাবি তুলেছিল। কিন্তু রেফারি তাতে সায় দেয়নি। পরে রিপ্লেতে দেখা যায়, বল গোল লাইনের ঠিক ওপরেই ছিল।

দেশের মেয়েদের সামনে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে ছিল গোলবারও। ২৫তম মিনিটে বাংলাদেশের একটি গোল প্রচেষ্টা সাইডপোস্টে লেগে ফিরে আসে। বিরতির পর প্রথম মিনিটে শামসুন্নাহার জুনিয়রের শটও আঘাত করে পোস্টে।

৭৬তম মিনিটে আরও একটি গোল পেয়েছিল স্বাগতিকরা। কিন্তু সহকারী রেফারি অফসাইডের পতাকা তুললে মাঠের রেফারি গোল বাতিল করেন। তা না হলে উৎসব জমতো আরও আগে