logo
আপডেট : ২৬ জানুয়ারী, ২০২২ ১৮:০৬
ডেপুটি হাইকমিশনের প্রথম সচিব সানিউল কাদেরকে প্রত্যাহার
অনলাইন ডেস্ক

ডেপুটি হাইকমিশনের প্রথম সচিব সানিউল কাদেরকে প্রত্যাহার

অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনের প্রথম সচিব (রাজনৈতিক) মুহাম্মদ সানিউল কাদেরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এরই মধ্যে বুধবার (২৬ জানুয়ারি) তিনি ঢাকায় ফিরে এসেছেন।

জানা গেছে, বিদেশি নারীর সঙ্গে প্রথম সচিব মুহাম্মদ সানিউল কাদেরের নগ্ন চ্যাটিংয়ের ভিডিও ফাঁস হওয়ার ঘটনা ঘটেছ। এর প্রেক্ষিতেই তাকে মিশন থেকে সরানো হয়েছে।

মিশনে কর্মরত প্রথম সচিব মুহম্মদ সানিউল কাদের এর কার্যকলাপ সম্পর্কিত  দু’টি অনৈতিক কাজের দুটি ভিডিও সামনে এসেছে। ভিডিও দুটিতে দেখা যাচ্ছে সানিউল এবং ওই নারী নগ্ন অবস্থায় উদ্যম নৃত্য ও অনৈতিক কার্যকলাপে লিপ্ত। মূলত হোয়াটসঅ্যাপে উত্তেজনামূলক চ্যাটিং এবং তাদের ভিডিও রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলে আসে। তাতে বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ ডেপুটি হাইকমিশনের কর্মকর্তারা যথেষ্ট ক্ষুণ্ন হয়েছেন। তবে বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই উপ-দূতাবাসের বেশ কিছু কর্মকর্তা গোটা ঘটনা ধামাচাপা দিতে উদ্যোগী হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিষয়টি নিয়ে সানিউল কাদেরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সরাসরি ওই ভারতীয় নারীকে চিনতে অস্বীকার করেন। এই নারীকে তিনি চেনেন না, এমন দাবি করেন এবং ভিডিটি সুপার ইম্পোজ করা হয়েছে বলে দাবি করেন।

এ বিষয়ে দুতালয় প্রধান (এইচওসি) শামীমা ইয়াসমিন বলেন, বিষয়টি স্পর্শকাতর, এখনই এই নিয়ে মন্তব্য করা যাবে না, তবে যদি এমন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে আমরা সরকারিভাবে ব্যবস্থা নেব বলে জানান।

তবে এক সূত্র জানায়, সানিউলকে ঢাকায় ডেকে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে তিনি ঢাকাতেই আছেন। জানা গেছে, বুধবার (২৬ জানুয়ারি) বেলা ১১ টা ৫০ মিনিটে পেট্রাপোল বন্দর হয়ে বেনাপোল বন্দরে পৌঁছান সানেউল কাদের।

এর আগেও ৯০ দশকে কলকাতার হোটেলে এক যৌন কেলেঙ্কারিতে নাম জড়ায় কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপদূতাবাসের দুই উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। সেই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তৎকালীন বাংলাদেশ সরকার তাদের দেশে ফিরিয়ে নেয় বলে জানা যায়। 

উপদুতাবাস সূত্রে বলা হচ্ছে, গোটা বিশ্বে গোপন তথ্য পাচারের এখন ‘হানিট্রাপ’ প্রতিটা দেশের মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সানিউল তার স্বীকার করে কিনা তাই এখন খতিয়ে দেখা হবে।