logo
আপডেট : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ২১:০৯
দুই যুগ ধরে সান্তাহার পৌরসভাকে পৌরকর দেয়নি ইউনিয়ন পরিষদ
আদমদীঘি (বগুড়া) প্রতিনিধি

দুই যুগ ধরে সান্তাহার পৌরসভাকে পৌরকর দেয়নি ইউনিয়ন পরিষদ

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌরসভায় মধ্যে অবস্থিত সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের দ্বিতল ভবনটির বিগত চব্বিশ বছর ধরে সান্তাহার পৌরসভাকে কোন পৌরকর প্রদান করেনি। 

সান্তাহার পৌরসভার কর আদায়কারী ফেরদৌস হোসেন জানায়, সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদ ভবনটি পৌরসভার মধ্যে ডাক বাংলো সংলগ্ন আঞ্চলিক সড়কের পাশে অবস্থিত,যার হোল্ডিং নাম্বার ৪০৩। উক্ত ভবনটি সান্তাহার পৌরসভার মধ্যে অবস্থিত হলেও ১৯৯৮ সাল থেকে অদ্যাবধি কোন পৌরকর পরিশোধ না করেই পৌর এলাকায় কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। প্রতি অর্থবছর ৫ হাজার ১০০ টাকা হারে বিগত ২৪ বছর যাবত প্রতিষ্ঠানটির উপর ধার্যকৃত কর পৌরসভাকে পরিশোধ করে নাই। বিগত ২৪ বছরের ধার্যকৃত পৌরকরের পরিমাণ সর্বসাকুল্যে ১ লক্ষ ২২ হাজার ৪০০ টাকা।
পৌরসভার নামা পৌঁওতা গ্রামের বাসিন্দা নেহাল আহম্মেদ প্রান্ত বলেন, পৌরসভার মধ্যে বসবাস করবে আর পৌরকর দিবে না এটা হতে না। পৌরসভার মধ্যে ইউনিয়নের কার্যক্রম পরিচালনা করলে অবশ্যই পৌর বিধি মোতাবেক পৌরকর পরিশোধ করতে হবে ইউপি চেয়ারম্যানকে। আমি পৌরসভার বাসিন্দা হিসেবে অবিলম্বে পৌরকর পরিশোধের জন্য ইউপি চেয়ারম্যানের দৃষ্টি আর্কষন করছি।   

সান্তাহার পৌর কর আদায় ও কর নিরপন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও পৌরসভার প্যানেল মেয়র জার্জিস আলম রতন বলেন, বর্তমানে আমরা পৌর সভার ৮০ ভাগ পৌর কর আদায় করতে সক্ষম হয়েছি। পৌর এলাকায় অবস্থিত সমস্ত সরকারি প্রতিষ্ঠান আমাদের নিয়মিত কর প্রদান করলেও সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদ ১৯৯৮ সাল থেকে অদ্যাবধি আমাদের পৌর কর পরিশোধ না করেও পৌর এলাকায় তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে যা অত্যন্ত দুঃখ জনক। ইউনিয়ন পরিষদও স্থানীয় সরকার বিভাগ এর একটি প্রতিষ্ঠান তাদেরও উচিৎ নিয়মিত পৌর কর পরিশোধ করা। বিগত দিনেও তাদের অনেক বার তাগাদা দিলেও তারা কোন পদক্ষেপ নেননি। 

সান্তাহার পৌর মেয়র তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু বলেন, পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হয়েও সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃপক্ষ বিগত ২৪ বছর যাবত কোন প্রকার পৌরকর পরিশোধ কর নাই। এক্ষেত্রে তাদেরকে পৌরসভা হতে মৌখিক ও নোটিশ প্রদান করে অবগত করলেও তারা কোনো কর্ণপাত করে নাই

এ বিষয়ে সান্তাহার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাহিদ সুলতানা তৃপ্তির মুঠোফোনে একাধিবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।