logo
আপডেট : ২৩ নভেম্বর, ২০২৩ ২৩:০৭
বগুড়ায় ফাস্ট ফুড খাবারের এক অনন্য নাম চিজি বার্গ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

বগুড়ায় ফাস্ট ফুড খাবারের এক অনন্য নাম চিজি বার্গ

স্বাদ, রং আর গন্ধ। মানুষের রুচির সাথে নিত্য পরিবর্তনশীল। সবাই চায় একটু ভিন্ন স্বাদ, একটু ভিন্ন ঘ্রাণ। ভোক্তারা চান স্বাস্থ্যকর মুখরোচক খাবার আর প্রতিষ্ঠান চায় সুনাম। শত বছরের পুরনো শতাব্দীর স্বাক্ষর আকবরিয়া এটি নিশ্চিত করতে সক্ষম হয়েছে। দেহ মনে, বুকে মুখে, চিন্তায় চেতনায় আকবরিয়ার পণ্যের গন্ধ রস স্পর্শ। শুধু এটি নয়, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে অপরূপ লীলাভুমির এ দেশ। অপরূপা এ দেশের সবুজ বন-বনানী, নদ-নদী, প্রচীন ঐতিহাসিক ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন সমূহ যুগ যুগ ধরে ভ্রমণ পিপাসু উৎসাহী মানুষ হতে শুরু করে আবাল-বৃদ্ধ-বনিতাকে আকৃষ্ট করে আসছে। আকবরিয়ার চিজি বার্গকে সাজানো হয়েছে শুধু খাবারের তৃপ্তি নয় মানসিক বিকাশের সাথে প্রকৃতিকেও যেন জয় করতে পারে। মেধাসম্বৃদ্ধ মানুষ হিসেবে নিজেকে গড়তে পারে। মানুষ একদিন প্রকৃতিকে জয় করার নেশায় মেতেছিল। প্রকৃতিতে জয় করেও মানুষের সেই নেশার অবসান হলো না। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিকে বর্তমানে আঁকড়ে ধরেছে মানুষ। বিশ্বকে হাতের মুঠোয় এনে ফেলেছে। প্রযুক্তিতেও এগিয়ে চলেছে এ প্রতিষ্ঠানটি।

তারই ধারাবাহিকতায় শতাব্দীর স্বাক্ষর আকবরিয়া বগুড়া শহরের জলেশ্বরীতলায় ফাস্ট ফুড খাবারে অনন্য মাত্রা যোগ করেছে চিজি বার্গ। সব ধরনের মানুষের চাহিদা ও সাধ্যের মধ্যে খাবার পাওয়া যাচ্ছে এই চিজি বার্গে। সব ধরনের আইটেম থাকলেও সবার কথা চিন্তা করে তাদের মেনু কে সাজিয়েছে নতুন আঙ্গিকে। 

চিজি বার্গে খেতে আসা লতিফপুর এলাকার বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রী রোকসানা খাতুন রুকু বলেন, চিজি বার্গের খাবার সুস্বাদু, স্বাস্থ্যকর মুখরোচক হলেও দাম তুলনামূলক কম। তাই অবসরে বান্ধবীদের সাথে নিয়ে খেতে আসি।  প্রতিষ্ঠানের ফাস্ট ফুড বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে সাধারন মানুষের মাঝে। 

আকবরিয়া লিমিটেডের চেয়ারম্যান হাসান আলী আলাল জানান, ফাস্ট ফুড আইটেমগুলো পাওয়া যাচ্ছে সূলভমূল্যে। আমরা সব সময় মানসম্মত খাবার ক্রেতাদের পরিবেশন করতে চাই। ক্রেতা ও ভোক্তারাই হচ্ছে প্রতিষ্ঠানের অহংকার। ফাস্ট ফুড খাবার মানসম্মত হওয়ায় মানুষের চাহিদাও থাকে ব্যাপক। 

চিজি বার্গ চালু হওয়ার পর থেকে প্রতিদিনই প্রচুর পরিমাণে ক্রেতা সমাগম হচ্ছে। তিনি আশা করছেন, ভবিষ্যতে এই ব্যবসায় আরও উন্নতি হবে।

বগুড়ায় চিজি বার্গে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। বিশেষ করে, তরুণদের মধ্যে ফাস্ট ফুডের চাহিদা বেশি, প্রতিদিনই প্রচুর ভিড় হয়। বিশেষ করে, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা এখানে বেশি ভিড় করে।