প্রকাশিত : ২৫ মে, ২০২২ ২১:৩১

জব্দ করা তেল টিসিবির মাধ্যমে বিক্রি হবে ১১০ টাকায়

অনলাইন ডেস্ক
জব্দ করা তেল টিসিবির মাধ্যমে বিক্রি হবে ১১০ টাকায়

রাজশাহীর বাগমারায় জব্দ করা ভোজ্যতেল ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) মাধ্যমে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন আদালত। আগামী শনি ও রোববার টিসিবির দুজন পরিবেশকের মাধ্যমে বাগমারায় এই তেল বিক্রি করা হবে। আদালত ভোক্তা পর্যায়ে লিটারপ্রতি ১১০ টাকা দামও নির্ধারণ করে দিয়েছেন। নির্দেশনা অনুযায়ী পুলিশ, টিসিবি ও পরিবেশকেরা প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বাজারে ভোজ্যতেলের যখন সংকট প্রকট, তখন ৯ মে বাগমারা উপজেলার তাহেরপুরে অভিযান চালিয়ে ২৬ হাজার লিটার সয়াবিন ও পামতেল জব্দ করে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয় শহিদুল ইসলাম স্বপন নামের এক ব্যবসায়ীকে। এ নিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়। আর জব্দ করা ভোজ্যতেল তাঁর গুদামেই সিলগালা করে রাখা হয়।

অসৎ উদ্দেশ্যে তেল মজুত করা ব্যবসায়ী কারাগারে। জব্দ করা এই তেল কী করা হবে সেই সিদ্ধান্ত দিতে আদালতে আবেদন করেছিলেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। গত রোববার রাজশাহীর আমলি আদালত-২-এ আবেদনের শুনানি হয়। পরে প্রথম শ্রেণির জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ আল্লাম সিদ্ধান্ত দেন টিসিবির মাধ্যমে জব্দ করা তেল বিক্রি করতে হবে। 

আদেশে আদালত বলেন, ‘জব্দকৃত আলামত ভোজ্যতেল, যা পরিমাণে অনেক বেশি হওয়ায় দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করা দুরূহ ব্যাপার। একই সঙ্গে দীর্ঘদিন এই তেল ফেলে রাখা হলে তার গুণগত মান নষ্ট হয়ে ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়বে। এমতাবস্থায় ফৌজদারি কার্যবিধির ৫১৬ এ ধারার বিধান অনুসারে জব্দকৃত তেল সম্পর্কে প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা প্রয়োজন। বর্তমানে দেশে যেহেতু ভোজ্যতেলের সংকট তৈরি হয়েছে এবং তেলের মূল্য ভোক্তাসাধারণের নাগালের বাইরে চলে গেছে, সেহেতু এই তেল টিসিবির জন্য সরকার কর্তৃক নির্ধারিত মূল্যে অনুমোদিত পরিবেশকের মাধ্যমে সাধারণ ভোক্তাদের মধ্যে বিক্রি করা সমীচীন।’ এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে আদালত পুলিশকে নির্দেশনা দেন।

আদালত বাগমারার ঝাড়গ্রামের টিসিবির পরিবেশক মেসার্স মোবিদুল এন্টারপ্রাইজ ও জলপাইতলার মেসার্স বেলাল ট্রেডার্সকে তেল বিক্রির দায়িত্ব দেওয়ার জন্য নির্ধারণ করে দেন। আদেশে আদালত বলেছেন, বাগমারার দুটি পৃথক স্থানে ২৮ ও ২৯ মে এই তেল ভোক্তাসাধারণের মধ্যে বিক্রি করতে হবে। সব তেল দুই পরিবেশকের মধ্যে সমান ভাগে ভাগ করে দিতে হবে। প্রতি লিটার তেলের মূল্য বাবদ ১০৫ টাকা ৩৭ পয়সা রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিতে হবে। আর পরিবেশকেরা লিটারপ্রতি ১১০ টাকা দরে ভোক্তাদের কাছে বিক্রি করবেন।

আদালত আদেশে আরও বলেছেন, বিক্রয়স্থলে আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয়সংখ্যক পুলিশ ফোর্স নিয়োজিত করতে হবে এবং বিক্রয় কার্যক্রম তদারক করার জন্য একজন এসআইকে রাখতে হবে। ভোক্তাপ্রতি দুই লিটারের বেশি তেল যেন বিক্রি করা না হয় এবং প্রতি লিটার তেলের ভোক্তামূল্য যেন ১১০ টাকার বেশি আদায় করা না হয় সেটি এসআই নিশ্চিত করবেন। বিক্রি শেষে পুলিশ আদালতে প্রতিবেদন দেবে।

জানতে চাইলে আদালতের নির্ধারণ করে দেওয়া মেসার্স বেলাল ট্রেডার্সের পরিবেশক শাহরিয়ার সরকার শাওন জানান, আদালতের নির্দেশনার কথা তাঁকে টিসিবি ও পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। তিনি তেল বিক্রির প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহমেদ জানান, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী তাঁরাও সব প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

উপরে