প্রকাশিত : ১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪ ২২:৩৮

শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর

অনলাইন ডেস্ক
শিগগির চালু হবে বিরল স্থলবন্দর

দিনাজপুরের বিরল স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম শিগগির শুরু হবে। স্থলবন্দরটি বাস্তবায়নের জন্য অর্থায়নের ইচ্ছে প্রকাশ করেছে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। তারা নিজস্ব প্রতিনিধির মাধ্যমে ভারতের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেবে। 

রোববার বিকেলে বিরল স্থলবন্দরের রেলপথ ও সড়কপথ পরিদর্শন এবং ইমিগ্রেশন, কাস্টমস, পুলিশ ও স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সাংবাদিকদের এসব কথা জানিয়েছে এডিবির প্রতিনিধি দল। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) পরামর্শক দলটি স্থলবন্দরের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য এই পরিদর্শন করেন। 

বিকেল পৌনে ৫টায় এডিবির প্রতিনিধিদল স্থলবন্দরের সড়কপথ পরিদর্শন করেন। এর আগে তারা রেলপথ পরিদর্শন করে। এ সময় ম্যানিলার এডিবির প্রধান পরিবহন বিশেষজ্ঞ মি. ইয়াসুশি তানাকা, এডিবি বাংলাদেশের সিনিয়র পরিবহন বিশেষজ্ঞ মি. অমৃতা রাও, প্রজেক্ট ম্যানেজার কাজী মোহাম্মদ আশরাফুল মুনিম, প্রকল্প পরিচালক ড. ডেভিড লুপটন, ডেপুটি টীম লিডার নাসিরউদ্দিন আহমেদ, জ্যান টমসিক, হেলেন এলিজাবেথ ম্যাকনাট, বিরল স্থলবন্দর লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদুর রহমান পাটোয়ারী মোহন, পরিচালক আজিজুল ইকবাল চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এডিবির প্রজেক্ট ম্যানেজার কাজী মোহাম্মদ আশরাফুল মুনিম বলেন, আমাদের এখানে আসার মূল উদ্দেশ্যে ছিল সবার সঙ্গে আলোচনা করা। আমরা একমত হতে পেরেছি যে বিরল স্থলবন্দর হবে বাংলাদেশের একটি মডেল স্থলবন্দর। স্থলবন্দর, কাস্টমস, ইমিগ্রেশন সব কিছুই এক ছাতার নিচে রয়েছে। আমরা আশা করছি খুব শিগগির এই স্থলবন্দরের কার্যক্রম শুরু হবে।

বিরল স্থলবন্দর লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শহীদুর রহমান পাটোয়ারী মোহন বলেন, স্থলবন্দর বাস্তবায়নের জন্য এডিবি অর্থায়নের ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। প্রত্যাশা করা হচ্ছে খুব শিগগির ইমিগ্রেশন চালু হবে। রেলপথ ও সড়কপথ চালুর ব্যাপারে পদক্ষেপ গ্রহণ করছে। যাত্রী পারাপার ও মালামাল আমদানি-রপ্তানির জন্য এডিবি ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। 

উপরে