প্রকাশিত : ৪ মার্চ, ২০২৪ ০০:১১

প্রথম অফশোর ব্যাংকিং আইন হচ্ছে, সংসদে বিল

অনলাইন ডেস্ক
প্রথম অফশোর ব্যাংকিং আইন হচ্ছে, সংসদে বিল

প্রথম বারের মতো দেশে অফশোর ব্যাংকিং আইন করতে যাচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে গতকাল শনিবার সংসদে ‘অফশোর ব্যাংকিং বিল, ২০২৪’ উত্থাপন করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী। বিলটি পরীক্ষা করে এক দিনের মধ্যে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য তা অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। ফলে দ্বাদশ সংসদের চলতি প্রথম অধিবেশনেই বিলটি পাশ হতে যাচ্ছে। উল্লেখ্য, গত বুধবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘অফশোর ব্যাংকিং আইন, ২০২৪’-এর খসড়ায় অনুমোদন দেওয়া হয়।

অফশোর ব্যাংকিং ব্যবস্থায় বিদেশি উত্স থেকে বৈদেশিক মুদ্রায় তহবিল সৃষ্টি হয় এবং প্রচলিত ব্যাংকিং আইনকানুনের বাইরে আলাদা আইনকানুনের মাধ্যমে এই তহবিল পরিচালিত হয় ও হিসাব সংরক্ষণ করা হয়। স্থানীয় মুদ্রার বিপরীতে নির্ধারিত বৈদেশিক মুদ্রায় অফশোর ব্যাংকিংয়ের হিসাব সংরক্ষণ করা হয়।

দেশের তপশিলি ব্যাংকগুলোও অফশোর ব্যাংকিং করতে পারবে। এ বিষয়ে উত্থাপিত বিলে বলা হয়েছে, অফশোর ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনার আলোকে সংশ্লিষ্ট তপশিলি ব্যাংক পর্ষদের অনুমোদিত নীতিমালা থাকতে হবে। তপশিলি ব্যাংকের অফশোর কার্যক্রমের জন্য পৃথক হিসাবপত্র সংরক্ষণ করতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ অনুমোদনে অভ্যন্তরীণ ব্যাংকিং ইউনিট থেকে অফশোর ব্যাংকিং ইউনিটে তহবিল স্থানান্তর করা যাবে। অফশোর ব্যাংকিং ব্যবস্থায় আমানতকারী বা বৈদেশিক ঋণদাতাদের হিসাব যে কোনো প্রকার শুল্কমুক্ত হবে বলেও বিলে উল্লেখ করা হয়।

আমানত ও ঋণ কার্যক্রম পরিচালনার বিষয়ে বিলে বলা হয়েছে, রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চল (ইপিজেড), অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং হাই-টেক পার্কগুলোর শতভাগ বিদেশি মালাকিনাধীন প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে আমানত গ্রহণ করা যাবে। পাশাপাশি অফশোর ব্যাংকিং ইউনিট এ ধরনের প্রতিষ্ঠানকে স্বল্পমেয়াদি ঋণ ও অগ্রিম বা বিনিয়োগ, ঋণপত্র ও গ্যারান্টি সুবিধা প্রদান, বিল ডিসকাউন্টিং, বিল নেগোশিয়েটিং এবং অন্যান্য বৈদেশিক বাণিজ্য-সংশ্লিষ্ট বহিঃ লেনদেন সেবা দিতে পারবে। বিলে আরও বলা হয়েছে, অনিবাসী বাংলাদেশি, বিদেশি ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে অফশোর ব্যাংকিং ইউনিট আমানত ও ঋণ গ্রহণ করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, এত দিন আইন না থাকলেও অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে দেশে অফশোর ব্যাংকিং পদ্ধতি চালু রয়েছে ১৯৮৫ সাল থেকে। পরে ২০১৯ সালে অফশোর ব্যাংকিং নীতিমালা জারি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

উপরে