প্রকাশিত : ১৫ এপ্রিল, ২০২৪ ১৩:৩১

বগুড়া থিয়েটার বৈশাখী মেলা ১৪৩১

অনলাইন ডেস্ক
বগুড়া থিয়েটার বৈশাখী মেলা ১৪৩১
ঈদের দিন থেকে বগুড়া পৌর পার্ক ও শহীদ টিটু মিলনায়তন চত্বরে  শুরু হল বগুড়া থিয়েটারের আয়োজনে ৪৩ তম বৈশাখী মেলা। ঈদের দিন থেকে মেলা শুরু হলেও গতকাল সকালে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় বগুড়া থিয়েটারের এই বৈশাখী মেলার। 
 
দীর্ঘদিনের প্রাচীন এই মেলা যেটি  বাংলা একাডেমীর গবেষণামূলক গ্রন্থতালিকাতেও স্থান পেয়েছে। প্রতিবছর বৈশাখের প্রথম দিন থেকে এই মেলা শুরু হয়। এবছর সাতদিন ব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে বৈশাখী মেলা। 
 
গতকাল সকালে ঢাক ঢোলের তালে বেলুন উড়িয়ে বৈশাখী মেলার শুভ উদ্বোধন করেন ও একইসাথে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  বগুড়া ৬ সংসদীয় আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব রাগেবুল আহসান রিপু। 
 
এরপর শুরু হয় কলেজ থিয়েটার ও বগুড়া থিয়েটারের নাট্যকর্মীদের পরিবেশনায় মঙ্গলগীত ও বর্ষ বরণের গান। উদ্বোধন এর আগে সারা পৃথিবীর মানুষের মঙ্গল কামনা করে পাঠ করা হয় মঙ্গলপত্র।
 
বৈশাখী মেলার উদ্ধোধনী আলোচনা সভায়  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়া পৌরসভার প্যানেল মেয়র আলহাজ্ব শেখ, দৈনিক করতোয়ার সম্পাদক লায়ন মোজাম্মেল হক লালু, বগুড়া থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, বিশিষ্ট আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন পিপি, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা: আরশাদ সাঈদ, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রকৌশলী সাহাবুদ্দীন সৈকত,   সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি লায়ন আতিকুর রহমান মিঠু, সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দিকী,  বিশিষ্ট ব্যবসায়ী অ্যাডোনেস বাবু তালুকদার।
 
আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বগুড়া থিয়েটারের সিনিয়র সহ সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শঙ্কর।  স্বাগত বক্তব্য রাখেন বগুড়া থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক হাসান ময়না এবং অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কনক কুমার পাল অলক। 
 
উদ্বোধনী আলোচনার পর আনন্দ পদযাত্রা সাতমাথা প্রদক্ষিণ করে মেলা মঞ্চে উপস্থিত হয়। এরপর শুরু হয় চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও পান্তা উৎসব। 
 
মেলামঞ্চে এদিন পরিবেশিত হয় লাঠিখেলা এছাড়াও  শারিরীক বিভিন্ন  কসরত করে ও নানা ধরনের আকর্ষণীয় খেলা দেখিয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেন গাবতলীর লাঠিয়াল দল। লাঠিয়াল দলের প্রধান ছবির জানান, বৈশাখী মেলা উপলক্ষে তারা সারা বছর বিভিন্ন ধরনের খেলা চর্চা করে থাকেন মানুষকে আনন্দ দেবার জন্য। যদিও এখন সারা বাংলাদেশে মেলা কমে গেছে তবুও বগুড়া থিয়েটার এই মেলা ধরে রেখেছে এবং এই মেলার জন্যই মূলত তাদের অপেক্ষা।
 
বৈশাখী মেলার উদ্বোধনী দিনে সান্ধ্যকালীন আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়ার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক জনাব মো: সাইফুল ইসলাম,  এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি ডা: সামির হোসেন মিশু।
 
উদ্বোধনী দিনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করে চর্চা সাংস্কৃতিক একাডেমি, নৃত্য পরিবেশন করে শিল্পী অমৃতা ও সমৃতা। বগুড়া থিয়েটারের নাট্যকর্মী এ, টি, এম নজরুল ইসলাম, সোবহানী বাপ্পি পরিবেশন করেন লোকসংগীত।  সবশেষে পরিবেশিত হয় সারিয়াকান্দি চরগোলাবাড়ী বিজয় থিয়েটারের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ বিয়ের গীত
 
আজ দ্বিতীয় দিনে মেলামঞ্চে লোকজ খেলার মধ্যে রয়েছে পাতা খেলা এছাড়াও সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করবে বিহঙ্গ আবৃত্তি পরিষদ,  মৌসুমী নৃত্যাশ্রম ও সবশেষে পরিবেশিত হবে বগুড়ার ঐতিহ্যবাহী পালাগান নছিমন পালা। সকালে অনুষ্ঠিত হয় শিশুদের দেশ গান প্রতিযোগিতা। 
 
সকালে মেলা উপলক্ষে বসেছিল মাছের দোকান। মেলায় আগত দর্শনার্থীবৃন্দ মেলা ঘুরে মাছ কিনে বাড়ি যান। উদ্বোধনী আয়োজনে প্রতিকী নতুন বউ সাজিয়ে মাছকাটার গানের মাধ্যমে মাছকাটা হয়। দর্শকবৃন্দ নান্দনিক এই আয়োজন উৎসাহ নিয়ে উপভোগ করেন।
 
আগামীকাল বিকেলে রয়েছে মোরগ লড়াই, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সকালে রয়েছে স্কুল নাটক এবং লোকজ গান প্রতিযোগিতা। 
 
মেলা প্রাঙ্গণে শিশু-কিশোর এবং সকলের জন্য বিভিন্ন বিনোদনের ব্যবস্থা রয়েছে। যেখানে সব বয়সের নারী পুরুষ দল বেঁধে এসে এসকল আনন্দ উপভোগ করছেন।
উপরে